আজ রবিবার | ১৬ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি | ২রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | শীতকাল
বিজ্ঞপ্তি
  • সারাদেশে সংবাদদাতা ও বিঞ্জাপন প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। ই-মেইল করুন- hrd.nobojugantor@gmail.com
রাজশাহীসারা বাংলা

সাঁথিয়ায় পুকুরের পাড় বাধতে বলায় বোন-ভাগ্নেসহ ৩জনকে হত্যা চেষ্টা

পাবনার সাোথিয়ায় বসতঘর ভেঙ্গে যাওয়ার আশংকায় পুকুরের পাড় বাধার জন্য বলায় মামা কর্তৃক বোন ও ভাগ্নেসহ ৩জনকে মারাত্মভাবে পিটিয়ে ও পানিতে চুবিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা চেস্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (০২ ডিসেম্বর- ২০২১) বিকেলে উপজেলার নন্দনপুর ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামে। এ ঘটনায় তৈয়ব আলীর ছেলে শামীম হোসেন বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দেন।

Advertisements

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার নন্দনপুর ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামের তৈয়ব আলীর বসত ঘর ঘেসে পুকুর খনন করেন একই গ্রামের তারই স্ত্রীর ভাই নাসির উদ্দিন। বৃহস্পতিবার বিকেলে তৈয়ব আলীর বসত ঘর ভেঙ্গে যাওয়ার আশংকায় পুকুরের পাড় বাধতে বলে পুকুরের মালিক নাসির উদ্দিনকে।

এতে নাসির উদ্দীন ও তার পরিবারের লোকজন নিয়ে তৈয়ব আলীর স্ত্রী হেনা খাতুন, ছেলে আল-আমিন ও বাদশাকে বেদম মারপিট করে জখম করে এবং আহত হেনাকে পুকুরের পানিতে চুবিয়ে হত্যার চেষ্টা করে এবং আল-আমিনকে গলা টিপে ধরে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে। আলআমিনকে গলাটিপে ধরায় বাদশা এগিয়ে  এলে তাকেও মারপিট করে আহত করে।

Advertisements

এ সময় আহতদের স্বজনেরা তাদের উদ্ধার করে সাঁথিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক হেনা খাতুন ও আল-আমিনের অবস্থা আশংকাজনক হলে তাদেরকে পাবনা সদর হাসপাতালে রেফার্ড করেন। এ ঘটনায় তৈয়ব আলীর ছেলে শামীম বাদী হয়ে নাছির উদ্দিনসহ ৪জন নামীয় আসামীসহ সাঁথিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন।

উল্লেখ্য, এর আগেও এ নিয়ে অভিযোগ দিলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের উপর হামলা চালিয়ে মারপিট করে। এ ঘটনায় মামলা হলে তা চলমান রয়েছে বলে জানান মামলার বাদী শামীম।

সাঁথিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম জানান, আমি বাইরে আছি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নব যুগান্তর /এসএম

বিষয়

*** 'নব যুগান্তর' সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আপনার ব্যক্তিত্ব প্রকাশ করে এবং এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ ***

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!
7
খেলাপি ঋণ এক লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে- আপনি কি মনে করেন এই অর্থ উদ্ধারে সরকারের উদ্যোগ যথেষ্ট?

ধন্যবাদ! আপনার মন্তব্যের জন্য।

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন>>>

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close